ডাইনি শিকার, ইতিহাসের এক নির্মম সত্য!

ইউরোপে ডাইনি শিকারের প্রাথমিক যুগ ছিল ১৪৮০ থেকে ১৭০০ সালের মধ্যে। বিভিন্ন সময়ে পৃথিবীতে ভয়ংকর যেসব প্রথার প্রচলন ছিল বা এখনো আছে, ডাইনি শিকার এর মধ্যে অন্যতম। গোটা বিশ্বের অনেক সংস্কৃতিতেই ডাইনি-শিকার হয়ে আসছে সেই প্রাচীন ও আধুনিককাল থেকে। মানুষ কুসংস্কারে আক্রান্ত হয়ে ডাইনি ভীতিতে ডাইনিদের বা যারা ডাকিনীবিদ্যা চর্চা করে তাদের হত্যা করে আসছে খুবই নির্মমভাবে। সন্দেহ হলেই তাদের জীবিত অবস্থায় পুড়িয়ে মারা হতো ডাইনি শিকারের নামে। ডাইনি শিকার এখনও আধুনিক সমাজে চলছে যেখানে ধর্মীয় মূল্যবোধ ডাকিনীবিদ্যা ও গুপ্তবিদ্যাকে সমর্থন করে না। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, কেন এত নিরপরাধ মানুষকে স্রেফ সন্দেহের ভিত্তিতে কঠোর শাস্তি দেওয়া হয়?

ডাইনিদের সম্পর্কে আমরা অনেক জায়গাতেই পড়েছি। রূপকথা, গল্প, রম্যরচনা, মুভি সবখানেই ডাইনিদের কূট চরিত্র আমরা শুনেছি। ডাইনিদের ধরা হয় অশুভ আর পাপের প্রতিফলন হিসেবে। খ্রিস্টান সমাজ মনে করত ডাকিনীবিদ্যা নগ্ননৃত্য, অরজি সেক্স ও মানুষের মাংস খাওয়া নিয়ে পালিত শয়তানী ধর্মীয় অনুষ্ঠানের সাথে জড়িত। ১৬০২ সালে লর্ড চীফ জাস্টিস অ্যান্ডারসন লিখেছিলেন- “চারপাশ ডাইনি দিয়ে ভরে গেছে। সব জায়গায়তেই তাদের উপস্থিতি টের পাওয়া যায়।” এই কথাটি তিনি রসিকতা করে বলেননি; বলেননি প্রতীকীস্বরূপও। বলেছেন ডাইনিদের জীবন-জীবিকার প্রতি হুমকি মনে করে, স্বর্গের পবিত্রতার প্রতি অবমাননার কথা চিন্তা করে।

১৭৫০ সালের কিছুটা আগে পৃথিবীর অনেক স্থানে ডাইনি শিকার আইনগতভাবে বৈধ ছিল। ডাইনি শিকারের সবচেয়ে ভয়ানক ঘটনাগুলো ঘটে ত্রয়োদশ শতাব্দীর শুরুর দিকে।

জার্মানীতে ডাইনি শিকার শুরু হয় বহু আগে। দক্ষিণ-পশ্চিম জার্মানীতে ডাইনি শিকারের সফল বছর ছিল ১৫৬১-১৬৭০ সাল। ডাইনিদের ধরে পুড়িয়ে মারা হত। সারা ইউরোপে প্রায় বারো হাজার ডাইনি বিচারের ঘটনা ঘটেছিল।১৮ শতকে এই অভ্যাস বেশ কমে যায়। ইংল্যান্ডে শেষ ডাইনি শিকারের ঘটনা ঘটেছিল ১৬৮২ সালে।

তবে আধুনিক যুগে এসেও বিশেষ করে আফ্রিকাতে মানুষ ডাইনিদের উপস্থিতি সম্পর্কে বিশ্বাস করে। ১৯৯৯ সালে বিবিসির এক প্রতিবেদনে দেখা যায় যে, কঙ্গোতে শিশুদের ডাইনি সন্দেহ করা হচ্ছে এবং তাঞ্জানিয়াতে ডাইনি সন্দেহ করে বয়স্ক মহিলাদের মারা হচ্ছে যদি তাদের চোখ লাল হয়। আফ্রিকাতে অনেকেই সম্পত্তির লোভে আপনজনকে ডাইনি বলে অপবাদ দেয়, এতে সেই নারীর সম্পত্তি দখলে নিতে তাদের সুবিধা হয়। এমনকি আমাদের পাশের দেশ ভারতেও প্রতিবছর ডাইনি শিকারের নামে অনেক মানুষ হত্যা করা হয়।

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker