সকালে না খেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে

কিছুদিন আগেও সকাল সকাল খেয়ে কাজে বের হওয়া ছিল দেশীয় সংস্কৃতির অংশ। কিন্তু এখন চিত্র পাল্টে গেছে। অধিকাংশ মানুষ বিশেষ করে শহরে যারা থাকেন তারা মধ্যরাতের আগে ঘুমান না। ফলে তারা ঘুম থেকে অনেক বেলা করে ওঠেন। এজন্য সকালের খাবার একেবারে দুপুরে খান। আবার কেউ কেউ ব্যস্ততার অজুহাতে সকালে নাশতা না করে কাজে বেরিয়ে যান। আপনি শুনে অবাক হবেন যে, সকালে না খেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে তার সবই আপনার অজানা। সকালের নাস্তা শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর ওপরই সারাদিন শরীরের শক্তি নির্ভর করে। সকালে পুষ্টিকর খাবারে পেট ভরালে সারাদিন শক্তি পাবেন এবং কম ক্লান্তিবোধ করবেন।

জেনে নিন সকালে না খেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে

১. ওজন বৃদ্ধি পায়

অনেকেই মনে করেন কম খেলে ওজন কমে। এই ধরণা কিন্তু একেবারেই ঠিক নয়। বরং যত কম খাবেন, খাবারে যত অনিয়ম করবেন তত বেশি বেশি করে ওজন বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকে। এখন প্রশ্ন জাগতে পারে এটা কীভাবে সম্ভব। সকালে নাশতা না করে যখন একসাথে দুপুরে খেতে যাবেন তখন আপনার প্রচন্ড ক্ষুধা পেয়ে যাবে। আর তখন আপনি মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে খাবার খেয়ে ফেলবেন। ফলে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালরি জমা হতে হতে একটা সময়ে গিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। তাই যদি ওজন কমাতে চান তাহলে ভুলেও সকালের নাশতা এড়াবেন না।

২. হৃৎপিণ্ডের ক্ষতি

সকালের নাশতা না করার অভ্যাস গড়ে তুললে হৃদরোগে আক্রান্ত হতে পারেন। একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ সকালে নাশতা এড়িয়ে যান তাদের মধ্যে ২৭ শতাংশের বেশি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। স্বাস্থ্যকর নাশতা হৃদরোগের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়।

৩. রাগ বাড়তে থাকে

খেয়াল করে দেখবেন যখন পেটে ক্ষিদের আগুন জ্বলতে থাকে, তখন মন মেজাজও কেমন বিগড়ে যায়। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা সকালের নাশতা করেন না তারা সব থেকে বেশি ক্লান্তিবোধ করেন এবং ভুলে যান বেশি। সকালের খাবার এড়ালে শক্তি কমে যেতে পারে এবং স্মৃতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। তাই তো সকাল সকাল খাবার না খাওয়ার অভ্যাস করলে শরীর ভাঙার সঙ্গে সঙ্গে মন মেজাজও খারাপ হবে। সম্প্রতি ব্রিটেনের একটি সায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে ব্রেকফাস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের শরীরে বিশেষ কিছু হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায় এবং মনকে চাঙ্গা করে তোলে। তাহলে এখন নিশ্চয় বুঝতে পারছেন, রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে সকালের খাবার কতোটা গুরুত্বপূর্ণ।

৪. টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি

হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ পাবলিক হেলথ-এর গবেষণায় দেখা গেছে, খাওয়াদাওয়ার সঙ্গে স্বাস্থ্যের নিবিড় সংযোগ রয়েছে। সকালে কিছু না খেয়েই যারা দিন শুরু করেন, তাদের শরীরে গ্লকোজ টলারেন্স বেড়ে যায়, যা এক সময়ে গিয়ে ইনসুলিন রেজিটেন্স হওয়ার পথকে প্রশস্ত করে। যার ফলে টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। প্রায় ছয় বছর ধরে ৪৬ হাজার ২৮৯ জন নারীর ওপর গবেষণা করে দেখা গেছে, যেসব নারীর সকালের নাশতা না করার অভ্যাস আছে তাদের মধ্যে টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেশি।

৫. চুলের ক্ষতি

সকালে না খেলে প্রোটিনের মাত্রা কমে যায় শরীরে, যা কেরাটিনের মাত্রায় প্রভাব ফেলে। আর কেরাটিন কমে গেলে চুলের বৃদ্ধি কমে যায় এবং চুল পড়তে শুরু করে।

অন্যদিকে আপনি যদি সঠিক সময়ে সকালের খাবার খান তাহলে আপনার দেহ মন দুটোই ভালো থাকবে। মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়বে এবং দেহে কর্শমক্তি সঞ্চয় হবে যার ফলে আপনার পুরো দিনটি ভালো যাবে। আর সেই সাথে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি পাবে।

আশা করছি, সকালে না খেলে যেসব রোগের ঝুঁকি বাড়ে তা আপনি সঠিকভাবে জানতে পেরেছেন। তাই এখন থেকে সকালের খাবারে আর কোনো ধরণের অনিয়ম না করে সঠিক সময়ে খাবার খান। আপনার দেহ মন দুটোই ভালো থাকবে এবং পুরো দিনটি ভালো কাটবে

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker