ত্বকে যেসব উপাদান ব্যবহার করবেন না কখনোই

সুন্দর ত্বক কে না চায়। নামী-দামী সব ব্র্যান্ডের উপকরণের পাশাপাশি ঘরোয়া উপায়ে ত্বকের যত্ন নিতে আগ্রহী বেশিরভাগ রূপ সচেতন মানুষ। মসৃণ, সুন্দর এবং কোমল ত্বক পাওয়ার জন্য অনেকেই ভরসা রাখেন ঘরোয়া উপাদানের ওপর। তবে কিছু উপাদান ত্বকে ব্যবহার না করাই ভালো। তাই ফেইসে কোনো কিছু ব্যবহার করার পূর্বে সতর্ক থাকুন। আজ কিছু উপাদানের কথা বলছি যেগুলো আপনার ত্বকের জন্য সর্বনাশ ডেকে আনতে পারে এবং ত্বককে পুরোপুরি ড্যামেজ করতে পারে। ভুলেও ত্বকে যেসব উপাদান ব্যবহার করবেন না সেগুলো জেনে নিন।

১. লেবু

অনেকে বলেন যে, ত্বকের উজ্জ্বলতা ফেরাতে লেবু অত্যন্ত উপকারী। রূপচর্চার বিভিন্ন উপাদানের সঙ্গে এই লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করা হয়। কিন্তু ভুলেও লেবু সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করবেন না। কারণ লেবুতে প্রচুর পরিমাণে সাইট্রিক অ্যাসিড থাকে। তাই সরাসরি ত্বকে প্রয়োগ করলে চামড়া পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। উজ্জ্বলতা কমে যেতে পারে। লেবু ত্বকে প্রয়োগ করার আগে পানি মিশিয়ে তবেই চামড়ায় লাগান। ত্বকে লেবু লাগানোর আগে অবশ্যই একবার অল্প একটু জায়গায় লাগিয়ে দেখে নিন। যদি ত্বকে সেটি স্যুট করে, তাহলেই প্রয়োগ করুন।

২. পেট্রোলিয়াম জেলি

সাধারণ মুখে আমরা হাল্কা ধরনের ক্রিম বা ময়শ্চারাইজার বা লোশন ব্যবহার করে থাকি। আর অন্য সমস্ত ক্রিমের তুলনায় পেট্রোলিয়াম জেলি অনেক ভারী হয়। এই ধরনের উপকরণ মুখে ব্রন বা অন্যান্য র‍্যাশের সৃষ্টি করতে পারে। অতএব সতর্ক থাকুন। ঠোঁট ফেটে গেলে পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করতে পারেন। তবে ত্বকে কোনোভাবে পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করবেন না।

৩. টুথপেস্ট

অনেকেই ভাবেন টুথপেস্ট দিয়ে নাকের পাশে থাকা ব্ল্যাকহেডস দূর করা যায়। এই ধারণা একদমই ঠিক নয়। উল্টো ত্বকে টুথপেস্ট লাগালে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এর মধ্যে ব্রণ, র‍্যাশ, ত্বকে লালচেভাব দেখা দেওয়া, ত্বক ফুলে যাওয়া, জ্বালাপোড়া ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। তাই ত্বকে টুথপেস্ট ব্যবহার করবেন না।

৪. বডি লোশন

মুখে বডি লোশন লাগিয়ে অনেকেই বড় একটি ভুল করে থাকেন। দেহের জন্য তৈরি করা বডি লোশন কখনোই মুখের ত্বকের জন্য উপযুক্ত নয়। কারণ মুখের ত্বক খুব স্পর্শকাতর হয়ে থাকে। মুখ ও দেহের অন্যান্য অংশে ব্যবহারের জন্য আলাদা আলাদা ক্রিম, ময়েশ্চারাইজ, লোশন রয়েছে। যেটি যে স্থানে ব্যবহার করা উচিত, সেখানেই করুন।

৫. গরম পানি

গরম পানিতে মুখ ধোয়ার অভ্যাস আছে? কিন্তু এটা কি জানেন যে, গরম পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার অভ্যাস করলে মুখের সব আর্দ্রতা উবে গিয়ে ত্বক প্রচণ্ড রুক্ষ হয়ে যাবে। স্টিম ফেসিয়াল করতেই পারেন, কিন্তু সরাসরি মুখে গরম পানি ব্যবহার করবেন না কখনোই। সবসময় মুখ ধোয়ার পানিতে ঠান্ডা ঠান্ডা পানি মিশিয়ে ঈষদুষ্ণ করে নিন। তাতে ত্বকের পিএইচ ব্যালান্স বজায় থাকবে, ত্বকের কোমলতাও বজায় থাকবে।

৬. অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করবেন না। কারণ অ্যালোভেরায় এক ধরনের এনজাইম থাকে যা ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি করে।ত্বকের সঙ্গে মানানসই উপকরণ মিশিয়ে অ্যালোভেরা ব্যবহার করুন।

৭. বেকিং সোডা

অনেকেই ভাবেন, বেকিং সোডার ব্যবহার ত্বকের মৃতকোষ দূর করতে ভালো। ত্বকে বেকিং সোডা সরাসরি লাগালে ত্বকের আদ্রর্তা নষ্ট এবং ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে কোষ। বিশেষ করে সংবেদনশীল ত্বকে কোনোভাবেই এটি ব্যবহার করবেন না।

৮. হলুদ

হলুদের প্যাক লাগানো পর ত্বক রোদের সংস্পর্শে আনা যাবে না। রোদের সংস্পর্শে এলে ত্বক তখন কালো হয়ে যেতে পারে। বাড়িতে যেদিন থাকবেন শুধু সেদিনই হলুদের প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

৯. ভিনেগার

আপেল সিডার ভিনেগার হোক কিংবা সাদা ভিনেগার, পানির সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করুন ত্বকে। সরাসরি ব্যবহার করবেন না।

১০.চিনি

অনেকে ত্বকের মৃতকোষ দূর করার জন্য চিনি ব্যবহার করেন। তবে এটি লাভের বদলে ক্ষতি বেশি করে। ত্বকে চিনি দিয়ে স্ক্রাব করলে ত্বকের নমনীয়তা কমে যায়। তাই মুখে এই উপাদান ব্যবহার থেকেও বিরত থাকুন।

এই আর্টিকেল ভুলেও ত্বকে যেসব উপাদান ব্যবহার করবেন না সেগুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন আশা করি।

আরো পড়ুন: চুল পড়া বন্ধ করার ঘরোয়া উপায়

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker