ইঞ্জেকশন দিয়ে হত্যার চেষ্টা ইমরান খানকে!

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর বর্তমান ঠিকানা আপাতত জেলই! আল কাদির জমি দুর্নীতি মামলায় মঙ্গলবার ইসলামাবাদ আদালত চত্বর থেকে গ্রেফতার হন ইমরান খান। এরপরই উত্তাল হয়ে পড়ে গোটা দেশ। এখন পাকিস্তানজুড়ে চলছে রাজনৈতিক অস্থিরতা। কেননা, তার দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) এর সমর্থকরা দেশটির রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে। আর এরই মধ্যে ইঞ্জেকশন দিয়ে হত্যার চেষ্টা ইমরান খানকে এমনি শোনা যাচ্ছে।

এদিকে, এরই মধ্যে আট দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ইমরান খানকে। গ্রেফতারের পর হেফাজতে থাকাকালীন শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তিনি। বুধবার আদালতকে এমন অভিযোগ জানিয়েছিলেন ইমরান খান।

পাকিস্তানের দুর্নীতি দমন বিভাগ তথা ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো (এনএবি) ইমরান খানকে ১০ দিনের হেফাজত চেয়েছিল। দুর্নীতি থেকে ক্ষমতার অপব্যবহার এবং একাধিক মামলায় অভিযুক্ত ইমরান খান। আদালত এনএবি এর আর্জি পুরোপুরি মঞ্জুর করেনি। তবে এনএবি’র হাতে আগামী ৮ দিনের জন্য তুলে দিয়েছে ইমরানকে।

তোশাখানা দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত ইমরানকে মঙ্গলবার গ্রেফতার করার পরই রাতারাতি এক অজানা জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। বুধবার তাকে আদালতে পেশ করার নিয়ম থাকলেও প্রকাশ্যে আনা হয়নি ইমরানকে। তাঁকে গ্রেফতার করে কোথায় রাখা হয়েছে, সে সম্পর্কে কোনও তথ্য ছিল না। পরে বুধবার জানা যায়, ইসলামাবাদ কিংবা রাওয়ালপিন্ডিতে ন্যাবের সদর দফতরে রাখা হয়েছে ইমরান খানকে।

স্থানীয় সংবাদ সংস্থার খবরে জানা গেছে, আদালতে শুনানির সময় ইমরান খান বিচারককে জানান, হেফাজতে থাকাকালীন ২৪ ঘণ্টায় তার উপর অমানবিক অত্যাচার করা হয়েছে। এমনকি, ওয়াশরুমের প্রয়োজন পড়লেও তাকে যেতে দেওয়া হয়নি।

এ সময় তিনি বলেন, “আমি আমার চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলতে চাই।” ইমরান খান বলেন, “মাকসুদ চাপরাসি (একজন পিয়ন) এর সাথে যা ঘটেছে তা আমার সাথে ঘটুক তা আমি চাই না।” এরপর তিনি রমজান সুগার মিলস মামলায় জড়িত একজনের কথাও আদালতের কাছে তুলে ধরেন, যিনি গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে মারা যান।

তাঁর আরও দাবি, জেলেই তাঁকে এক ধরনের ইঞ্জেকশন দেওয়া হচ্ছে, যা ধীরে ধীরে হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাকের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এরপরই আদালত এ বিষয়ে রায় সংরক্ষণ করেন এবং আগামী ১৭ মে আবার ইমরান খানের বক্তব্য শোনার জন্য দিন ধার্য করেন।

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker